বিশেষ প্রতিনিধি:- নরসিংদী সদর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দ্যা ফাইন্যান্সিয়াল পোস্ট,ক্রাইম ম্যাগাজিন অপরাধ জগতের সাংবাদিক মোঃমাসুদ রানা বাবুল, দৈনিক নরসিংদীর নবকণ্ঠের সম্পাদক-মোঃকামাল হোসেন ভূইয়া, দৈনিক  সবুজের দেশ ও নিউজ পোর্টাল অপরাধকন্ঠ ক্যামেরাম্যান দিলীপ সাহা সহ স্থানীয় সাংবাদিকরা নরসিংদী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে  সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে,তাদের ক্যামেরা ও মোবাইল ফুন ছিনতায়ের চেস্টার অভিযোগ করেছেন।
যানা যায়- একাধিক ব্যক্তি অতিরিক্ত টাকা দিয়ে পাসপোর্ট করতেছেন বলে জানিয়েছেন, এবং বিভিন্ন পাসপোর্ট এর ফাইলে বিভিন্ন চিহ্ন দেখতে পায় এবং প্রত্যেকটি চিহ্ন দেখে চ্যানেল  ফ্রি ১০০০টাকা দিতে হবে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা ।এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির
 তথ্য সংগ্রহ করে নরসিংদী আঞ্চলিক পাসপোর্ট
 অফিসের এডি মানিক দেবনাথ এর বক্তব্য নিতে গেলে, ভিজিটিং কার্ড দিলে আইডি কার্ড ছুড়ে ফেলে দেয় এবং বলেন আপনারা কিসের সাংবাদিক আমি সাংবাদিকদের লক্ষ লক্ষ টাকা দেয় মাসে আপনারা কেন নিচে ভিডিও করেছেন চলে যান। সাংবাদিকরা ছবি ও ভিডিও করতে চাইলে তিনি স্টাফদের কে ডেকে বলেন ক্যামেরা ও মোবাইল রেখে দাও ।
 এডির নেতৃত্বে ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে।
সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করলে উপস্থিত জনগণ এগিয়ে আসলে ছিনতাইয়ের চেষ্টা ব্যর্থ  হয়। 
একটি ভিডিওতে দেখা যায় তিনি চেয়ার থেকে উঠে তেরে আসছেন সাংবাদিকদের দিকে  ঘটনা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে এবং ইংরেজী দৈনিক সহ জাতীয় স্থানীয় নিউজ পোর্টালে মোট ৪৫ টি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয় । বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে নরসিংদীর বিভিন্ন উপজেলা প্রেসক্লাব এবং সাংবাদিক সংগঠন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মোট  ১৬  টি সাংবাদিক সংগঠন এই ঘটনার নিন্দা জানান এবং এডি মানিক দেবনাথ এর শাস্তির দাবি করেন । এ ব্যাপারে নরসিংদী সদর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা বাবুল বলেন সম্পূর্ণ সাংবাদিকতার নিয়ম-কানুন মেনে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির  তথ্য পাওয়া যায় এডির রুমে ঢুকলে এডি ক্ষিপ্ত হয়ে কেন নিচে ভিডিও করলাম এবং পাবলিকের সাথে কথা বললাম গালিগালাজ শুরু করে  মোবাইল  ও ক্যামেরা কেড়ে নিতে চেষ্টা করেন স্টাফদের ডেকে বলেন আটক করতে মোবাইল ক্যামেরা ফ্লোরে পড়ে যায় প্রায়  ৭০/৮০ হাজার টাকার ক্ষয়-ক্ষতি জয়। 
এডি মানিক দেবনাথ কে এ ব্যাপারে ফোন করলে তিনি মোবাইল রিসিভ করেনি ।