নিজস্ব প্রতিবেদক:-নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশালে স্ত্রী লিমা আক্তার (২৬) এর পরকিয়ার জেরে রুবেল (৩৩) নামে ভাঙ্গারি শ্রমিক বিষপানে আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সকালে ঘোড়াশাল পৌর এলাকার দক্ষিণ চরপাড়ার লিমার ভাড়া বাড়িতে এ বিষপানের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। নিহত রুবেল পাশের উত্তর টেঙ্গরপাড়া গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রুবেল প্রায় ৪ বছর আগে দক্ষিণ চরপাড়ার বাদল মিয়ার মেয়ে লিমা আক্তারকে বিয়ে করে। তাদের ঘরে আড়াই বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে। গত ছয় মাস ধরে স্ত্রী লিমা আক্তার দক্ষিণ চরপাড়া এলাকার অন্তর নামে দুই সন্তানের পিতার সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় স্বামী রুবেলের সাথে স্ত্রীর মাঝে সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার সকালে পরকিয়া প্রেমিক অন্তর ঘোড়াশাল দক্ষিণ চরপাড়ার বাসা থেকে লিমাকে তার মায়ের বাসা মাধবদীতে নিয়ে যায়। এ খবর জানাজানি হলে সন্ধার দিকে অন্তরের স্ত্রী ও রুবেল দুজন মিলে মাধবদী থেকে লিমা কে ঘোড়াশালের দক্ষিণ চরপাড়ার ভাড়া বাড়িতে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় তাদের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এর জেরে শনিবার সকালে কোন এক সময় রুবেল বিষপান করে। পরে স্ত্রী লিমা তাকে হাসপাতালে না নিয়ে উত্তর টেঙ্গরপাড়া গ্রামে শশুর বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে পরিবারের লোকজন প্রথমে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে নরসিংদীর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে রুবেলকে নরসিংদী থেকেও ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। কিন্তু রুবেলের পরিবার টাকা না থাকার অজুহাতে ঢাকা না নিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসে। পরে অবস্থার অবনতি হলে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। ঘোড়াশাল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই অর রশীদ জানান, এ ঘটনার খবর পেয়ে নিহত রুবেলের বাড়িতে গিয়ে লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী লিমা কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় পাঠানো হয়েছে।